বাঁশখালীতে ফুল দেয়ার দ্বন্দ্বে ছাত্রলীগ নেতাকে ছুরিকাঘাত


স্টাফ রিপোর্টার::
মহান স্বাধীনতা দিবসে শহীদ মিনারে ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে বাকবিতণ্ডার জের ধরে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হোসাইন মোহাম্মদকে (২৯) ছুরিকাঘাত করেছে একই গ্রুপের আরেক ছাত্রলীগ নেতা ছোটন রুদ্র।
সোমবার (২৬ মার্চ) রাত সাড়ে ১০টার দিকে বাঁশখালী পৌরসভা সদরের গ্রিনপার্ক কমিউনিটি সেন্টারের সামনে এ ঘটনা ঘটে।
ছুরিকাঘাতে আহত ছাত্রলীগ নেতা হোসাইনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
অন্যদিকে, ছুরিকাঘাতের ঘটনায় জড়িত ছোটন রুদ্রকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।
ছুরিকাঘাতে আহত ও গ্রেফতার হওয়া দু’জনই বাঁশখালী আসন থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল্লাহ কবির লিটনের অনুসারি হিসেবে পরিচিত।
বাঁশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সালাউদ্দিন হীরা জানান, স্বাধীনতা দিবসে শহীদ মিনারে ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুপুরের দিকে ছাত্রলীগের একই গ্রুপের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। পরে বাকবিতণ্ডাকে কেন্দ্র করে রাতে স্থানীয় গ্রিনপার্ক কমিউনিটি সেন্টারের সামনে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা ছোটন রুদ্র এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে হোসাইনকে। গুরুতর আহত হোসাইনকে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
চমেক হাসপাতালে দায়িত্বরত এএসআই শীলব্রত বড়ুয়া জানান, বাঁশখালীতে ছুরিকাঘাতে আহত এক ছাত্রলীগ নেতাকে হাসপাতালের ক্যাজুয়েলিটি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। তার বুকে ও পিঠে ছুরিকাঘাতে মারাত্মকভাবে জখম করা হয়েছে।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে রাতে গ্রিনপার্ক কমিউনিটি সেন্টারে বাঁশখালী পৌরসভার মেয়র শেখ সেলিমুল হক চৌধুরী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। হোসাইনও সেখানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করতে যান। অনুষ্ঠান চলাকালে অনুষ্ঠানস্থল থেকে বাইরে আসেন হোসাইন। ওই সময়েই তাকে ছুরিকাঘাত করা হয়।।
এদিকে, ছাত্রলীগ নেতাকে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় জড়িত ছোটনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাঁশখালী থানার ওসি সালাউদ্দিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*