লোহাগাড়ায় বিনা টেন্ডারে কোটি টাকার বালি নামে মাত্র মূল্যে বিক্রি করলেন ইউএনও

নিজস্ব সংবাদদাতা::
লোহাগাড়ায় গৌড়স্থান ও সড়াইয়া মৌজায় জব্দকৃত কোটি টাকার বালি অবৈধ সুবিধা ভোগ করে নামে মাত্র মূল্যে স্থানীয় কিছু অসাধু বালি ব্যবসায়ীদের দিয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, গেল বছর উপজেলার সড়াইয়াখলের নানা স্থান হতে ১০ স্তুপ অবৈধ ভাবে উত্তলন করা বালি প্রশাসন জব্দ করেন। এই জব্দকৃত বালি বর্তমান উপজেলা প্রশাসন মাহাবুব আলম অন্যায় ভাবে সুবিধা নিয়ে নামেমাত্র মূল্যে বিনা টেন্ডারে কিছু অসাধু ব্যবসায়ীদের গোপনে দিয়ে দিয়েছেন। এলাকার বৈধ বালি ব্যবসায়ীরা জব্দকৃত বালি ক্রয় করার জন্য উপজেলা প্রশাসনের সাথে বারবার যোগাযোগ করলে প্রশাসন তাদের জানান উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের অনুমতি স্বাপেক্ষে পত্রিকার মাধ্যমে টেন্ডার বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জব্দকৃত বালি নিলামে বিক্রি করা হবে। সরকারী নিয়মমতে প্রশাসনের হাতে জব্দকৃত যে কোন মালামাল নিলাম বা বিক্রি করতে হলে নীতিমালা মেনে করতে হয় । নীতিমালায় উল্লেখ আছে পত্রিকার মাধ্যমে টেন্ডার বা নিলাম বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা, উপজেলা প্রশাসনের নোটিশ বক্সে প্রদর্শন করা এবং জনসমাগম স্থলে মাইকিং করা ইত্যাদি। এই কর্মকর্তা নীতিমালার কোন প্রকার তোয়ক্কা না করে অবৈধ ভাবে আর্থিক সুবিধা নিয়ে সরকারী রাজস্বকে ফাঁকি দিয়ে ব্যাক্তিগত সুবিধা ভোগ করে সরকারের মারত্বক ক্ষতি সাধন করেছে বলে মত প্রকাশ করেন এলাকার বিজ্ঞ মহল। এছাড়া নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলার এক কর্মকর্তা জানান মাহাবুব আলমকে সম্প্রতি এই উপজেলা থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে, ফলে তিনি তরিগড়ি করে এই কার্যক্রম করেছেন। এই ব্যাপারে স্থানীয় সচেতন বাসিন্দা মোরশেদুল আলম চৌধুরী জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের বিষয়ে লোহাগাড়া উপজেলা প্রশাসন মাহাবুব আলমের সাখে কথা বললে তিনি অভিযোগ সত্য নয় বলে জানান। অপর দিকে উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভুমি) জানান বালি বিক্রি বা নিলাম সংক্রান্তে উপজেলা কোষাগারে কোন প্রকার ডিসি আর বা টাকা জমা হয়নি এবং এই ব্যাপারে তিনি কিছুই জানেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*