সাধারণ মানুষের কাতারে দাঁড়াতে চাই : বিভাগীয় কমিশনার

স্টাফ রিপোর্টার::
দেশের ‘ব্যুরোক্রেসি’ এখন আগের মতো নেই উল্লেখ করে বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান বলেছেন, ‘তৃণমূলে কাজ করে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এখন জনগণের সঙ্গে মিলেমিশে একাকার হয়ে যাচ্ছে। এ ধারা অব্যাহত রেখে আমরা সাধারণ মানুষের দুয়ারে তাদের প্রাপ্য সেবা পৌঁছে দিতে চাই। তাদের সঙ্গে এক কাতারে এসে দাঁড়াতে চাই।’
শনিবার (২৩ জুন) নগরের সার্কিট হাউজে আন্তর্জাতিক পাবলিক সার্ভিস দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
বিভাগীয় কমিশনার বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার ভাষণে প্রায়ই বলতেন, আমার দেশের সরকারি কর্মচারীরা জনগণের সেবক, খাদেম এবং ভাই। বর্তমান সরকার বঙ্গবন্ধুর এ দর্শন অনুযায়ী ‘ব্যুরোক্রেসি’ পরিচালনা করছে। প্রশাসনে এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা হচ্ছে।
জাতিসংঘের গভর্নমেন্ট পারফরমেন্স ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সূচকে বাংলাদেশ এগিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সরকার অ্যানুয়েল পারফরমেন্স অ্যাগ্রিমেন্ট (এপিএ), ন্যাশনাল ইন্টেগ্রেটি স্ট্র্যাটেজি (এনআইএস), ইজ অব ডুয়িং বিজনেস (ইডিবি) বাস্তবায়ন করেছে। এর মাধ্যমে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কত সহজে মানুষকে সেবা দেওয়া যায় সে বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। তাদের ইনোভেটিভ আইডিয়ার জন্য পুরস্কৃত করা হচ্ছে।
সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান বলেন, আমার এলাকায় আমার পরিবারের সদস্যরা স্থানীয় পুলিশ কিংবা প্রশাসনের কাছে যে ধরনের সেবা পাওয়ার যোগ্য বলে আমি মনে করি ঠিক সে ধরনের সেবা যদি আমার কর্মস্থলে আমি জনগণকে দেই তবেই পাবলিক সার্ভিসে গুণগত পরিবর্তন আসবে।
তিনি বলেন, সরকারি চাকরিতে অহংকারের কিছু নেই। সরকারি চাকরি পাওয়ার পর ক্ষমতা দেখানোর কিছু নেই। বরং এ চাকরির মাধ্যমে আমরা এখন ‘পাবলিক সার্ভেন্ট’ মাত্র।
জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি ড. এস এম মনির-উজ-জামান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক ড. কাজী এস এম খসরুল আলম কুদ্দুসী, পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা ও জেলা সিভিল সার্জন আজিজুর রহমান সিদ্দিকী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*