বঙ্গোপসাগরের ফিশিংট্রলারে ডাকাতি ৭ মাঝি মাল্লা অাহত

স্টাফ রিপোর্টার::
বঙ্গোপসাগরের একটি ফিশিং ট্রলারে ডাকাতি হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। ডাকাত দল ট্রলারে থাকা ৭ মাঝিমাল্লাকে গুলিবিদ্ধ ও মারধর করেছে। গুলি বিদ্ধরা মহেশখালী হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে অাসলে অাহতদের ৬ জন জেলেকে কক্সবাজার মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরন করেছে। অাহত জেলেরা জানায়, ছোট মহেশখালী জাফর মেম্বারের পুত্র রেজাউল করিম প্রকাশ সোনামিয়া মেম্বারের এফবি অাল মদিনা ২১জন মাঝিমাল্লা নিয়ে বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরেত যায় । ২৮ জুলাই শনিবার ফিশিং ট্রলারটি অনুমান বিকাল ২.৫০ ঘটিকার সময় বঙ্গোপসাগরের ১৪বিয়া নামক স্থানে পৌছলে অপর একটি ফিশিং বোট অাল মদিনা নামক ফিশিং ট্রলারের নিকট কিছু বরফ ধার চেয়ে নিকটে অাসে। এ সময় তারা ধারনা করে এরা জলদস্যু। তাদের ট্রলারটি দ্রুত মেশিন বাড়িয়ে পালাতে চেষ্টা করলে ডাকতরা মাঝিমাল্লাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে জলদস্যুদের নিয়ন্ত্রণে নেয়। ডাকাত দল জেলেদের মারধর ও গুলিবিদ্ধ করে টাকা,মোবাইল ট্রলারের বাজার,বরফ সহ সবকিছু লুটে নেয়। ডাকাতের গুলিতে অাহতরা হলেন ছোট মহেশখালীর ইউনিয়নের মুতিরছড়া গ্রামের সোলতান অাহাম্মদের পুত্র ছৈয়দ মাঝি,মোঃ ছিদ্দিকের পুত্র অাব্দুল জলিল,মৃত খোরশেদ অালমের পুত্র ছৈয়দ হোছন,ছৈয়দ মাঝির পুত্র মোঃ শাহেদ,মোঃ ইউনুচ এর পুত্র রেজাউল করিম,অাব্দুল মোনাফের পুত্র মেহেদী হাসান।বর্তমানে আহত জেলেরা কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে,

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*