৪ শিক্ষার্থীর লেখাপড়ার দায়িত্ব নিলেন লোহাগাড়া থানার ওসি মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম

রায়হান সিকদার,লোহাগাড়া :: পুলিশ জনগনের সেবক,জনগনের বন্ধু এই কথাটি চিরন্তন সত্যিই।বাংলাদেশ পুলিশ বাংলাদেশের আইন শৃঙ্খলার উন্নয়নে যেমন অবদান রেখে যাচ্ছেন ঠিক তেমনি জনগণের কল্যাণে ও মঙ্গলের জন্য কাজ করেন।অসহায় শিক্ষার্থীর পাশে দাঁড়ান। মানুষ বেঁচে থাকে তার কর্মের মাঝে। লোহাগাড়ায় থানার ওসি মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম ব্যাতিক্রম ধর্মী মহৎ কাজ করে নজিরবিহীন দৃষ্টান্ত স্হাপন করলেন যা সত্যিই প্রশংসনীয়।লোহাগাড়া উপজেলার আধুনগর ইউনিয়নের গুল-এ-জার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে একদিন স্কুলে পরিদর্শনে যান ওসি মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। তিনি বিদ্যালয়ের বিভিন্ন শ্রেনী কক্ষে ঢুকে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করান।শিক্ষার্থীরাও ওসি মুহাম্মদ সাইফুল ইসলামের পাঠদান মনযোগ দিয়ে শুনেন। সেদিন শ্রেণী কক্ষে বিদ্যালয়ের অসহায় ৪ শিক্ষার্থীর দারিদ্রতার কথা শুনে তিনি আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন।তিনি তাদের সাথে কথা বললেন।কথা বলার পর বুঝতে পারলেন যে,তাদের পড়ালেখার আগ্রহ আছে অনেক কিন্তু দারিদ্রতার পিছুটানের কারণে তেমন কোন সামর্থ্য নেই। তিনি ওইদিন হতেই ৪ শিক্ষার্থীর দায়িত্ব নেন ।৪ শিক্ষার্থীরা হল যথাক্রমে বড়হাতিয়া কূলপাগলী এলাকার মৃত সামশুল আলমের কন্যা শামিমা আকতার ( ৬ষ্ট শ্রেনী), আধুনগর হাজির পাড়ার আলতাফ মিয়ার কন্যা নিশাত ফাতেমা নিশু( ১০ম শ্রেনী), আধুনগর সিকদার পাড়ার মুহাম্মদ বশিরের কন্যা মীমা আকতার(৯ম শ্রেনী) ও আধুনগর চৌধুরী পাড়ার আবুল হাসেমের কন্যা সানজিদা মাহবুবা নিশাত(৯ম শ্রেনী)।অসহায় ৪শিক্ষার্থীর পড়ালেখার সম্পুর্ণ দায়িত্ব নিলেন মানবপ্রেমী ওসি মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। ১ সেপ্টেম্বর সকালে থানার অফিসার ইনচার্জ কার্যালয়ে উক্ত ৪ শিক্ষার্থীকে পড়ালেখার জন্য আর্থিকভাবে সহযোগিতা প্রদান করা হয়েছে।আর্থিক অনুদান তুলে দেন লোহাগাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। এসময় আধুনগর গুল-এ-জার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাস্টার সমশুদ্দীন উপস্হিত ছিলেন। এ ব্যাপারে লোহাগাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম উক্ত প্রতিবেদককে বলেন,অসহায় শিক্ষার্থীর লেখাপড়ার দায়িত্ববার গ্রহন করতে পেরে সত্যিই নিজেকে খুব বেশী সৌভাগ্যবান ও গৌরবান্বিত মনে করছি। তিনি অঙ্গীকার ব্যক্ত করে আরো বলেন, যতদিন লোহাগাড়ায় তিনি থাকবেন ততদিন উক্ত বিদ্যালয়ের ৪ শিক্ষার্থীর পাশে থেকে সর্বাত্মক সহযোগিতা প্রদানের দৃঢ? প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*