চিন্তিত রোনালদোর স্পন্সররা!

স্পোর্টস ডেস্ক ::
বেশ বিপাকেই আছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর। সম্প্রতি তার বিরুদ্ধে ওঠা ধর্ষণের অভিযোগটি নতুন করে তদন্ত শুরু হয়েছে। আর এতেই সিআর সেভেনের স্পন্সররা চিন্তিত।
যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত এক ক্রীড়া সরঞ্জাম প্রস্তুতকারক সংস্থা এ ব্যাপারে স্পষ্ট জানিয়েছে, ঘটনার গতিপ্রকৃতির ওপর তারা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে নজর রাখছে। এই সংস্থার সঙ্গে রোনালদোর প্রায় সাড়ে ৭ হাজার কোটি টাকার চুক্তি। পর্তুগিজ তারকার সঙ্গে আরও একটি বহুজাতিক সংস্থার চুক্তি রয়েছে। তারাও বিবৃতি দিয়ে এই ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।
এদিকে রোনালদোর এমন পরিস্থিতির জেরে তার বর্তমান ক্লাব জুভেন্টাসের শেয়ারও ১৮ শতাংশ পড়ে গিয়েছে বলে জানা যায়।
পর্তুগালের তারকা ফরোয়ার্ড রোনালদোর বিরুদ্ধে ২০০৯ সালের এক ঘটনা নিয়ে এক মার্কিন নারী গুরুতর এক অভিযোগ তোলেন।
জার্মান ম্যাগাজিন ‘দের স্পিগেল’ সম্প্রতি এক প্রতিবেদন প্রকাশ করে। সেখানেই ক্যাথরিন মায়োরগা রোনালদোর বিপক্ষে ধর্ষণের অভিযোগ আনেন। ম্যাগাজিনে মায়োরগা অভিযোগে জানান, ২০০৯ সালে লাস ভেগাসের পামস প্লেস হোটেলে তাকে ধর্ষণ করেন রোনালদো।
কিন্তু এত বছর পর কেন এমন অভিযোগ, এমন প্রশ্নের উত্তরে মায়োরগা জানান, জুভেন্টাস তারকা তাকে তিন লক্ষ পচাঁত্তর হাজার মার্কিন ডলার দিয়ে কাউকে কিছু না বলার জন্য মুখ বন্ধ রাখতে বলেন। মায়োরগার দাবি, আদালতে না যাওয়ার জন্য রোনালদো তাকে এই অর্থ দেন। সেই সময় ওই পরিমাণ অর্থ পেয়ে ও কিছুটা ভয়েই মুখ খোলেননি ওই মার্কিন নারী।
অবশ্য এবারই প্রথম নয়। বছর দেড়েক আগে এই ম্যাগাজিন আরও একবার মায়োরগার পক্ষ থেকে রোনালদোর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তোলে। সেবারও সে অভিযোগ ধোপে টেকেনি। আবারও সেই একই অভিযোগ তোলায় রোনালদোর আইনজীবী ম্যাগাজিনের বিপক্ষে আদালতে যাওয়ার হুমকি দিয়েছেন।
রোনালদোর ক্লাব জুভেন্টাস কিন্তু এই ঘটনায় পর্তুগিজ তারকার পাশে দাঁড়াচ্ছে। ক্লাবের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো বুঝিয়েছেন তিনি কতটা পেশাদার এবং নিজের কাজের প্রতি গভীর ভাবে নিবেদিতপ্রাণ। জুভেন্টাসের সবাই যার প্রশংসা করছে। তার যে কোনো সংকটে ক্লাব পাশে থাকবে।’ প্রসঙ্গত রোনালদো নিজে এই অভিযোগ ওঠার পরে টুইট করে পুরো ব্যাপারটাই ‘মিথ্যে’ বলে দাবি করেছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*