‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় বিএনপির কেউ জড়িত নয়’

ঢাকা অফিস::
২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় তারেক রহমানসহ বিএনপির কোনো নেতা জড়িত নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) শহীদ জেহাদ দিবস উপলক্ষে ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।
মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার রাজনৈতিকভাবে হয়রানি করতে, উদ্দেশ্য প্রনোদিতভাবে বিএনপি নেতা তারেক রহমান, আব্দুস সালাম পিন্টু এবং লুৎফুজ্জামান বাবরসহ বিএনপি নেতাদের জড়িয়েছে। এ মামলায় বিএনপির কোনো নেতাকর্মীরা জড়িত নয়। সরকার ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত না করে, প্রকৃত অপরাধীদের খুঁজে বের না করে সম্পূর্ণ রাজনৈতিকভাবে পুরো বিষয়টাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করেছে। উদ্দেশ্য একটাই এদেশ থেকে বাংলাদেশী জাতীয়বাদকে ধ্বংস করা।’
তিনি বলেন, ‘বিএনপি সরকার ঘটনার পরপরই মামলা করেছে, তদন্তের ব্যবস্থা করেছে। এমনকি এফবিআইকে আনা হয়েছিল। পরবর্তীতে ১/১১ সরকারের সময় যে চার্জশিট দেওয়া হয়েছিল, যে তদন্ত করা হয়েছিল সেখানে কোথাও তারেক রহমান কিংবা বিএনপির কোনো নেতার নাম উল্লেখ করা হয়নি। ৬১ জন সাক্ষী সাক্ষ্য দিয়েছেন। তাদের কেউ তারেক রহমানের নাম বলেনি। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পরই গোটা পরিস্থিতি বদলে গেলো। আবার নতুন করে তদন্ত শুরু করে, কাহার আকন্দকে তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়া হলো। বিএনপি সরকারের সময় যিনি চাকরি হারিয়েছিলেন। ২০০৮ সালের নির্বাচনে সে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চেয়েছিল। তাকে দেওয়া হলো তদন্ত কর্মকর্তা। মুফতি হান্নানকে ৪১০ দিন রিমান্ডে নিয়ে নির্মম অত্যাচার করা হয়েছে। আদালতে সে নিজেই বলেছে আমার নকগুলো তুলে ফেলা হয়েছে। অত্যাচার করে তার কাছ থেকে জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে। সেভাবে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নাম জড়িয়েছে।
মহাসচিব বলেন, ‘তারেক রহমান, আব্দুস সালাম পিন্টু, লুৎফুজ্জামান বাবরসহ বিএনপির কোন নেতাই ২১ আগস্টের ঘটনার সঙ্গে জড়িত না। কারণ যে কোনো ঘটনার একটা মোটিভ থাকে। এ ঘটনায় বেনিফিশিয়ারি (লাভবান) কে হয়েছে? আওয়ামী লীগই হয়েছে। আওয়ামী লীগ এটিকে ইস্যু করে বিএনপিকে ধ্বংস করার চেষ্টা করছে, বিএনপির বিরুদ্ধে কথা বলছে। সঠিক তদন্ত করা হলে, প্রকৃত দোষীদের খুঁজে বের করলে আসল সত্য বেরিয়ে আসতো।
বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমান উল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে ও নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন আলমের পরিচালনায় স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*