তারা সরে গেলেও যথাসময়েই নির্বাচন হবে : কাদের

ঢাকা অফিস::
বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র করছে অভিযোগ তুলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, তারা একটা নীল-নকশা করছে। সেটা হলো- লন্ডন থেকে সুতোয় টান মারছে, কিভাবে নির্বাচন বানচাল করা যায়। নির্বাচন উৎসবমুখর পরিবেশেই হবে, যা দেশে বিরাজ করছে। তারা (বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট) সরে গেলেও নির্বাচন হবে। যথাসময়েই হবে। এ নিয়ে কোনো সন্দেহ বা সংশয় নেই।
বুধবার (০৫ ডিসেম্বর) রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, সরকারকে হেয় করার জন্য তারা (বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট) দেশে-বিদেশে নানা অপপ্রচার চালাচ্ছে। তারা মনে করছে, আমরা এটা জানি না। কিন্তু আমরা সব জানি। সরকারে আছি বলে আমাদের ধৈর্য ধরতে হচ্ছে। আমরা ধৈর্য ধরে আছি।
নির্বাচনে বিদেশি পর্যবেক্ষক আসার ব্যাপারে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, তাদের (বিদেশি পর্যবেক্ষক) জন্য বাংলাদেশের দ্বার খোলা আছে। যে কেউ পর্যবেক্ষণের জন্য আসতে পারে। রোহিঙ্গাদের মতো তাদের জন্যও বাংলাদেশের দ্বার অবারিত। তারা আসবে, নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করবে। কেউ যদি কোনো অভিযোগ করে তারা সেটা খতিয়ে দেখতে পারে। তবে বিদেশিদের কথায় তো দেশের জনগণ আমাদের ভোট দেবে না, জনগণ ভোট দেবে চলমান ও দৃশ্যমান উন্নয়ন দেখে।
এনডিআই-এর সঙ্গে বৈঠকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা ড. কামাল হোসেনের অভিযোগ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, এনডিআই একটি সম্ভ্রান্ত প্রতিষ্ঠান। আমরা এনডিআইকে অনুরোধ করবো তারা (ড. কামাল) যে অভিযোগ করেছে সেটা খতিয়ে দেখার জন্য। এটা তারা অনুধাবন করতে পারবেন যদি বাস্তবতা খতিয়ে দেখেন।
‘এখন অভিযোগ আর নালিশ ছাড়া বাস্তবে যুক্তফ্রন্টের আর কোনো সম্বল নেই। বিদেশিরা আমাদের ভোট দেবে না, তারা আমাদের ক্ষমতায় বসাবে না। ভোট দেবে আমাদের দেশের জনগণ। বিদেশিদের কথায় জনগণ আমাদের ভোট দেবে না।’
এক প্রশ্নের উত্তরে কাদের বলেন, তারা (বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট) অভিযোগ করছে নির্বাচনী পরিবেশ বিঘ্নিত হয়েছে। কোথায় হয়েছে? বলুন তো। যেটা নয়াপল্টনে হয়েছিলো সেটা বিএনপিই করেছিলো। নির্বাচন বিঘ্নিত হয় এমন কোনো কিছু আমরা করতে দেবো না।
‘তারা যদি কিছু করতে চায় তা প্রতিরোধ করা হবে। নির্বাচন নিয়ে কোনো সংশয় সন্দেহ নেই। উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন হবে। বিজয়ের মাসে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট হবে এজন্য উনাদের (বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট নেতা) মন খারাপ।
আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ৮ ডিসেম্বরের পর কোনো বিদ্রোহী প্রার্থী থাকলে সঙ্গে সঙ্গে বহিষ্কার করা হবে। প্রত্যাহারের যখন সুযোগ থাকবে না তখন সঙ্গে সঙ্গে বহিষ্কার।
‘আমাদের মনোনয়ন চূড়ান্ত হয়ে গেছে। দুই একদিনের মধ্যে প্রার্থী ছাড়া অন্যরা প্রত্যাহার করে নেবে। আমরা যেহেতু প্রার্থীদের চিঠি দিয়েছি তাই ওইভাবে তালিকা দেওয়া হবে না,’ যোগ করেন তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*