৬ দফা দাবীতে পিএইচপি’র শ্রমিকদের কর্মবিরতি

মীর মামুন, সীতাকুণ্ড :: সীতাকুণ্ডে বেতন বৃদ্ধি সহ নানার বৈষম্যের প্রতিবাদে শিল্প প্রতিষ্ঠান পিএইচপি’র শ্রমিকরা ৬ দফা দাবীতে বিক্ষোভ ও কর্মবিরতি পালন করেছে। রবিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) উপজেলার কুমিরা এলাকার পিএইচপি ফ্যাক্টরির সামনে সকাল ৬টা থেকে বেলা ১১ টা পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ এই বিক্ষোভ ও কর্মবিরতি পালন করে শ্রমিকরা। এসময় কারখানার কাজ বন্ধ রেখে শত শত শ্রমিক কর্মবিরতিতে অংশ নেয়। তাদের দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে, যাদের চাকরির মেয়াদ ১০ বছরের নিচে তাদের প্রত্যেক শ্রমিককে ৪ হাজার টাকা বেতন বাড়ানো, নতুন যোগদানের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন বেতন ৭৫০০ টাকা নির্ধারন করা, যথা সময়ে কর্মস্থল ত্যাগের সুযোগ দেওয়া, স্থানীয়দের যোগ্যতা অনুযায়ী কর্মসংস্থানে অগ্রাধিকার দেয়া, দুরবর্তী শ্রমিকদের যাতায়াতের সুবিধার্থে পরিবহনের ব্যাবস্থা করা এবং দাবি আদায়কারী কোন শ্রমিককে অন্যায়ভাবে ছাটাই করা যাবেনা। শ্রমিকরা জানান, দীর্ঘ দিন ধরে তাদের বেতন-ভাতা বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে আসছিল মালিক কর্তৃপক্ষের কাছে। অনেকবার আশ্বাস দিলেও মালিক পক্ষ তাদের দাবি মেনে নিচ্ছে না। বছরে একজন শ্রমিকের বেতন বাড়ে মাত্র ১৫০ টাকা থেকে ১৭৫ টাকা। এদিকে শ্রমিক বিক্ষোভের খবর পেয়ে সীতাকুণ্ড মডেল থানা পুলিশ ও বিপুল সংখ্যক শিল্প পুলিশ ছুটে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে মিল গেইটে অবস্থান নেয়। সুজন নামের এক শ্রমিক জানান, দীর্ঘদিন ধরে সরকার নির্ধারিত ন্যায্য মজুরী থেকে শ্রমিকদেরকে বঞ্চিত করছেন মিল কর্তৃপক্ষ। প্রতিবাদ করলে চাকুরীচ্যুত সহ নানা রকম হয়রানীর শিকার হতে হয় বলে সে অভিযোগ করেন। এছাড়া বাৎসরিক ছুটি, ইনক্রিমেন্ট সহ বেতন বৃদ্ধিতে তারা নানান বৈষম্যের শিকার। কর্মবিরতি চলাকালে শ্রমিকদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন মোবারক হোসেন সুজন, জাবেদ হোসেন, ইলিয়াছ সানি, মোঃ সিরাজুল ইসলাম, সেলিম উদ্দিন, আলাউদ্দিন, সুজাউদ্দিন সুমন, মোঃ দিদার প্রমূখ। সীতাকুণ্ড মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ দেলওয়ার হোসেন, কুমিরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোরশেদ চৌধুরী বিক্ষোভরত শ্রমিকদের সাথে কথা বলেন। এ সময় ওসি দেলওয়ার হোসেন আগামী ১ মাসের মধ্যে মালিক পক্ষের সাথে আলোচনা করে তাদের দাবি সমুহ মেনে নেওয়ার আশ্বাস দেন। এছাড়া মিলের সিনিয়র জি এম সফিকুর রহমান খান শ্রমিকদের দক্ষতানুযায়ী বেতন বৃদ্ধি সহ তাদের দাবীসমুহ মেনে নেওয়া হবে বলে আশ্বাস দিলে শ্রমিকরা পরে কাজে যোগ দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*