একুশে বইমেলা বসন্তে রঙিন

স্টাফ রিপোর্টার :: হলুদ রঙের শাড়ির সঙ্গে খোঁপায় ফুল আর হলুদ পাঞ্জাবি পড়ে তরুণ-তরুণীদের ভিড় যে মাঠে। সেই মাঠে হঠাৎ কেউ ঢুকে পড়লে, মনে করবে বসন্তের মেলা বসেছে হয়তো। মনে করবেই-বা না কেন, ওই মাঠ থেকে যে ভেসে আসছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের এ গানটি ‘ফাগুন হাওয়ায় হাওয়ায় করেছি যে দান, তোমার হাওয়ায় হাওয়ায় করেছি যে দান’।
মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় গিয়ে দেখা যায়, নগরের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামের জিমনেসিয়াম মাঠে শুরু হওয়া অমর একুশে বইমেলাটি যেন বসন্তে রঙিন। সব তরুণ-তরুণীদের ভিড় জমেছে সেখানে।
কেউ বই কিনছেন, আর কেউ দেখছেন। আর কেউ কেউ বইয়ের বিভিন্ন প্রকাশনীর সামনে সেলফি তুলছেন। সবচেয়ে মজার বিষয়, প্রকাশনীর স্টলে থাকা কেউ কেউ দর্শক টানতে বলছেন, ‘বইটি সদ্য প্রকাশিত, পুরোটি রোমান্টিক কবিতা। একবার পড়বেন-তো, বার বার পড়বেন।’
অক্ষরবৃত্ত প্রকাশনীর নাজিম উদ্দিন জানান, অন্যদিনের তুলনায় আজকে সবচেয়ে বেশি দর্শনার্থীদের ভিড়। বিশেষ করে তরুণ-তরুণীদের ভিড় সবচেয়ে বেশি।
প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী সোহেল রানা ও ফারজানা। অক্ষরৃবত্ত প্রকাশনী থেকে নীলিমা শামীমের ‘আগুনে লেখা বসন্তে কাবিন’ বইটি কিনে ফারজানাকে উপহার দিচ্ছিলেন।
সোহেল রানা বলেন, চট্টগ্রামে এরকম সুন্দর পরিবেশে বইমেলা আর দেখিনি। ঢাকায় বড় বড় বইমেলার মতো মনে হয়েছে এই একুশে বইমেলাকে। একেবারে নতুন লেখকের নতুন ভালো ভালো বইও পাওয়া যাচ্ছে এখানে।
ইউপিএল প্রকাশনীর স্টলে থাকা কয়েকজন জানান, অন্যদিনের চেয়ে আজকে সবচেয়ে বেশি বই বিক্রি হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*