মীরসরাইয়ের ইছাখালীতে কৃষিজমির মাটি নিয়ে ভরাট কাজে অতীষ্ঠ এলাকাবাসী

মীরসরাই প্রতিনিধি :: চট্টগ্রাম জেলার মীরসরাই উপজেলায় প্রতিবছর শীতকাল মৌসুমে এমন চিত্র দেখা যায়। সম্প্রতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর গড়ে উঠলে ও এই অঞ্চলে কৃষিজমির সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করা হয়নি বলে দাবী করেন এলাকাবাসী।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তিন ফসলী জমিতে কোন কারখানা গড়ে না উঠার প্রতিশ্রুতি দিলে ও এখানে তার বিপরীত দেখা যায়। একসময় এই অঞ্চলের মানুষ কৃষি নির্ভর ছিল।ব র্তমানে এই এলাকাজুড়ে ব্যাপক মাছ চাষ হওয়ার ফলে তিন ফসল চাষাবাদ এখন হয় না। সরেজমিনে দেখা যায় মাছ চাষ হওয়ার ফলে এখানে গোচারণভূমি ও হারিয়ে গেছে।প্রতি বছর এই চরাঞ্চলে কথিত নামধারী কিছু সংখ্যক স্কেলেটর সিন্ডিকেট মাছের ঘের ও কৃষি জমি থেকে বিপুল পরিমাণ মাটি অন্যএ ভরাটের কাজে বাণিজ্যিকভাবে বিক্রি করে। যা মীরসরাই উপজেলা প্রশাসন ও ইছাখালী ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃক কোন অনুমোদন নেই বলে জানা যায়।মাটিগুলো কাটার পর পিকআপে করে যখন বহন করা হয় তখন রাস্তায় প্রচুর ধূলাবালি দেখা যায়।এই ধূলাবালিগুলো দোকানপাট ও স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থী এবং সাধারণ নাগরিকদের রোগ তৈরিতে সাহায্য করে বলে একাধিক নাগরিক মৌখিক অভিযোগ করেন।স্থানীয় ইউপি সদস্যগণ এই বিষয়ে কোন পদক্ষেপ না নেওয়ায় এলাকাবাসীও হতাশ।এই বিষয়ে ইছাখালী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নুরুল মোস্তফা উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করে বলেন,পশ্চিম ইছাখালী ও পূর্ব ইছাখালী মৌজায় নাল জমি,খাল ও কৃষি জমিতে অবৈধ মাটি খনন ও যএতএভাবে ভরাট কাজ বন্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বিনীত অনুরোধ করেন। শেখ হাসিনা সরকার মাটি খনন,পুকর খনন,জায়গা ভরাট,গৃহ নির্মাণ,ও কোন উন্নয়ন কাজের প্রারম্ভে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ থেকে অনুমতি নিতে হয়।কিন্তু এই নিয়ম যেন কেউ মানতে নারাজ। তাই এই অনিয়মে যে বা যাহারা লিপ্ত তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের নিকট বিনীত অনুরোধ করেন এলাকার সাধারণ নাগরিকগণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*