রাঙামাটিতে ১১১ কোটি টাকায় নির্মিত সৌর বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী


রাঙামাটি প্রতিনিধি::
রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলায় ১১১ কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে ৭.৪ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন সৌর বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্ভোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার বেলা এগারোটার সময় গণভবন থেকে সরাসরি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই কেন্দ্রটি উদ্বোধন করা হয়। রাঙামাটি জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ এর সঞ্চালনায় ভিডিও কনফারেন্সটি শুরু হয়। এসময় ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, পার্বত্যাঞ্চলের প্রতিটি ঘর আলোকিত করতে হবে। যেখানে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া যাবে না সেখানে সৌর বিদ্যুতের মাধ্যমে আলোকিত করার জন্য বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।
এসময় চাকমা চীফ সার্কেল ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায়, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের ভিসি প্রজ্ঞানেন্দু বিকাশ চাকমা, মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ টিপু সুলতান, পুলিশ সুপার আলমগীর কবীর, কাপ্তাই কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক এটিএম আব্দুজ্জাহেরসহ বিভিন্ন সরকারি পদস্থ কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক প্রতিনিধি এবং সাংবাদিকগণ।
উল্লেখ্য, ইতিমধ্যে উৎপাদন শুরু হয়ে গেছে কাপ্তাই সৌর বিদ্যুৎ কেন্দ্রের। গেল ৬ মে থেকে বাণিজ্যিকভাবে এ কেন্দ্রে বিদ্যুৎপাদন হয়ে প্রতিদিন জাতীয় গ্রীডে যোগ হচ্ছে প্রায় ৬ দশমিক ৭ মোগাওয়াট বিদ্যুৎ।
দেশের বিদ্যুৎ চাহিদা মেটানোর লক্ষে রাঙামাটিতে ৭ দশমিক ৪ মেগাওয়াট সৌর গ্রীড কানেকটেড বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের উদ্যোগে নেয় জ¦ালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রনালয়। এশিয়া উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) এর সহযোগিতায় জেলার কাপ্তাই উপজেলায় স্থাপিত কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ২২ একর নিজস্ব জায়গায় স্থাপিত প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড। যাতে মোট ব্যয় হয়েছে ১১১ কোটি ২০ লক্ষ টাকা। সৌরশক্তিকে কাজে লাগিয়ে প্রকল্প থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৭ দশমিক ৪৪ মেগা ওয়াট ডিসি ও ৬ দশমিক ৬৩ মেগাওয়াট এসি। ২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে প্রকল্পটির কার্যক্রম শুরু হয়। চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জেট টি ই কর্পোরেশন কোম্পানি প্রকল্পটির কারিগরি কাজ সম্পন্ন করেছেন। এবং আজ আনুষ্টানিক উদ্ভোধনের পর বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করবে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*