পেকুয়ায় ডাকাতের গুলিবিদ্ধ মরদেহ ও ১২টি বন্দুক উদ্ধার


কক্সবাজার প্রতিনিধি::
কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার গুদিকাটা এলাকা থেকে মোহাম্মদ আলম (২৮) নামে এক ডাকাতের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ১২টি দেশীয় তৈরি বন্দুক ও ২৩ রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।
পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল আজম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ভোরে গুদিকাটা এলাকায় একদল ডাকাত ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে সেখানে অভিযান চালায় পুলিশ। ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছার আগেই ডাকাতদলের দুইপক্ষের মধ্যে গোলাগুলি শুরু হয়। এসময় ডাকাতদল পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে ডাকাতদলের সদস্যরা গুলি করতে করতে গহীন অরণ্যে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল তল্লাশি চালিয়ে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও আলমের মরদেহ উদ্ধার করে। ওসির ধারণা, ডাকাতদলের দুইপক্ষের বিরোধের জের ধরে এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে।
এ ঘটনায় সহকারী পুলিশ সুপার (চকরিয়া সার্কেল) কাজী মতিউর ইসলাম, পেকুয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান, সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মেজবাহ উদ্দিন ও এক কনস্টেবল আহত হয়েছেন। আলম উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের বদিউদ্দিন পাড়ার আবুল হোসেনের ছেলে।
কামরুল আজম জানান, আলম এলাকার একজন চিহ্নিত ডাকাত। তার বিরুদ্ধে ডাকাতি, চাঁদাবাজিসহ থানায় অন্তত সাতটি মামলা রয়েছে।
তিনি আরও জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় পৃথক তিনটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*