সাংবাদিকের উপর হামলার মামলায় চার সন্ত্রাসী কারাগারে


স্টাফ রিপোর্টার::
লালখান বাজার ভান্ডারী মার্কেটের সামনে কাউন্সিলার এ.এফ. কবির আহমদ মানিকের ডান হাত ছাত্রলীগ নেতা সুদীপ্ত হত্যাকারী মোক্তার এবং তার সহযোগী ও চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা সাংবাদিক নুরুল আজমের মোটরসাইকেল গতিরোধ করে দুই লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে । চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় মোক্তার এবং তার সহযোগিরা সাংবাদিক নুরুল আজমকে মারধর করে এবং আজমের সাথে থাকা। একটি ক্যামেরা ও মানিব্যাগ ছিনিয়ে নেয়। এ হামলার ঘটনায় গত ৮ নভেম্বর পাঁচ জনের নাম উল্লেখ করে ও ৭/৮ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে খুলশী থানায় মামলা দায়ের করেন নুরুল আজম। যার মামলা নং ১৩/৩৭৫। এজাহারভুক্ত আসামীগণ হলেন ১. মোক্তার হোসেন ২. সালাউদ্দিন ৩. শাহাদাত ৪. শাহজাহান ও ৫. নাহিদ হোসেন রাসেল। উল্লেখিত ঘটনার মামলার ২ দিন পরে ৫ নং আসামি নাহিদ হোসেন রাসেলকে লালখান বাজার এলাকা থেকে গ্রেফতার করে খুলশী থানা পুলিশ। রোববার (৮ ডিসেম্বর) কিলার মোক্তারসহ চার সন্ত্রাসী সাংবাদিক নুরুল আজমের দায়ের করা মামলায় আদালতে আত্মসর্মপন পূর্বক জামিনের আবেদন করেন। আদালত শুনানী শেষে আসামীদের জামিন না দিয়ে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। মেট্রোপলিটন সিনিয়র ম্যাজিস্ট্রেট সরওয়ার জাহানের আদালত এ নির্দেশ দেন।
আসামিরা হলো- মোক্তার হোসেন ভুঁইয়া, মো. সালাউদ্দিন, মো. শাহাদাত ও মো. শাহাজাহান।
কন্ট্রাক কিলার মোক্তার নুরুল আজমকে মারধরের সময় প্রকাশ্যে বলে হাসতে হাসতে সে মানুষ খুন করতে পারে। উল্লেখ্য, ঘটনার ধারণকৃত ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এদের মধ্যে মোক্তার হোসেন ভুঁইয়া,সিটি কলেজের ছাত্রলীগ নেতা সুদীপ্ত হত্যা মামলার প্রধান আসামি। সদর ঘাট থানার মামলার নং ৮(১০)১৭ প্রধান আসামি মোক্তার ১৬৪ জবানবন্দি দিয়েছে আদালতে।কিলার মোক্তার এর সহযোগী ০২ নং আসামি সালাউদ্দিন এর বিরুদ্ধে পুলিশের উপর হামলার ঘটনার মামলা ও রয়েছে । ০৩ নং আসামি শাহাদাত হোসেন লালখান বাজার ফুটপাতের দোকান থেকে দীর্ঘদিন ধরে চাঁদাবাজি করে আসছে । ০৪ নং আসামি শাহজাহান বাংলা মদের ব্যবসা সাথে জড়িত থাকার কারণে একবার গ্রেফতার করে পুলিশ। মোক্তার এবং তার সাথে থাকা সহযোগী নামে।নগরের বিভিন্ন থানায়। চাঁদাবাজি, পুলিশের ওপর হামলা ও হত্যা মামলাসহ বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে। মোক্তার ও বাকি আসামিরা স্থানীয় কাউন্সিলর মানিকের অনুসারী হিসেবে এলাকায় পরিচিত।
বিষয়টি নিশ্চিত করে মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবি অ্যাড. মাহমুদুল হক বলেন, লালখান বাজারের ইস্পানি মোড়ে সাংবাদিক নুরুল আজমকে মারধরের মামলায় জামিন নিতে আসলে বিজ্ঞ আদালত চারজন আসামির জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠায়।
উল্লেখ্য, গত ৭ নভেম্বর রাতে লালখান বাজার ইস্পাহানি মোড়ে সাংবাদিক মো. নুরুল আজমকে চাঁদাদাবি করে মারধর করে এবং চাঁদা না দিলে হত্যার হুমকি দেয়। এ ঘটনায় গত ৮ নভেম্বর পাঁচজনকে আসামি করে ও অজ্ঞাত আরো ৭/৮ জনকে আসামি করে খুলশী থানায় মামলা করেন নুরুল আজম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*