রাঙামাটির অটিষ্টিক শিশুদের জন্য প্রশিক্ষণ ভবন নির্মাণ করে দিচ্ছে উন্নয়ন বোর্ড


আলমগীর মানিক,রাঙামাটি::
পার্বত্য জেলা রাঙামাটির অটিষ্টিক শিশুদেরকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রতিভার বিকাশ ঘটানোর লক্ষ্যে এগিয়ে এসেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ। বোর্ডের উদ্যোগে শীঘ্রই একটি প্রশিক্ষণ ভবন তৈরি করে দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। শনিবার রাঙামাটি শহরের রাঙাপানি এলাকায় ৮০ শতক জায়গার উপর এই প্রশিক্ষণ ভবনের ভিত্তি প্রস্তুর স্থাপন করেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা-এনডিসি। প্রতিবন্ধি শিশুদের পরিচর্যা ও প্রশিক্ষণ প্রদানে কাজ করা সোসাইটি ফর দি ওয়েলফেয়ার অব অটিস্টিক চিলড্রেন (সোয়াক) এর উদ্যোগে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই ভিত্তি প্রস্তুর স্থাপন করে তিনি। এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা বলেন, অটিজম আক্রান্ত শিশুরা আমাদের সমাজেরই অবিচ্ছেদ্য অংশ। অনেক সুস্থ মানুষ যা পারে না সেই সুপ্ত প্রতিভা তাদের রয়েছে। আমাদেরকেই সেই সুপ্তপ্রতিভাগুলো বিকশিত করার সুযোগ করে দিতে হবে। তাদের উপযোগী শিক্ষা, চিকিৎসা ও পরিচর্যার মাধ্যমে মানুষ হিসাবে বেঁচে থাকার অধিকার প্রতিষ্ঠা করে দিতে হবে। সেই দায়িত্ববোধ থেকেই পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ এই প্রশিক্ষণ সেন্টার ভবনটি নির্মাণ করে দিচ্ছে। প্রধান অতিথি বলেন, যতœ, ভালবাসা দিয়ে মানুষ করলে অটিস্টিক শিশুরা ও একটি সুন্দর জীবন লাভ করতে পারে। এদের মধ্যে অনেক প্রতিভা রয়েছে। তাদের প্রতিভাগুলো খুঁজে বের করতে হবে এবং প্রতিভার বিকাশ ঘটাতে হবে। ইতিমধ্যেই আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল অটিজমের উপরে প্রচুর কাজ করেছেন এবং যার স্বীকৃতিস্বরূপ ডব্লিউএইচও থেকে এক্সেলেন্ট ইন মেন্টাল হেলথ” পুরস্কারও পেয়েছেন। অভিভাবকদের পাশাপাশি আমাদের সকলেই অটিস্টিকদের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের সুপ্ত প্রতিভা বিকাশে অটিজম শিশুর প্রতি অধিকতর যতœবান হওয়ার আহবানও জানিয়েছেন তিনি।
আলোচনা সভায় সোয়াক এর চেয়ারপার্সন সুবর্ণা চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সদস্য পরিকল্পনা ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরী, ইউএনডিপি’র ন্যাশনাল প্রজেক্ট ম্যানেজার প্রসেনজিৎ চাকমা, সোয়াকের সচিব সাবিনা হোসেন, সোয়াকের কোষাধ্যক্ষ সৈয়দা শামীমা আখতার, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সহকারী প্রকৌশলী ত্রয়া সরকার, সোয়াকের ডেপুটি ডাইরেক্টর মোঃ মফিজুল ইসলাম’সহ এলকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*